ই-অগ্রণী দর্পণ

অগ্রণী ব্যাংকের নিজস্ব প্রকাশনা

অগ্রণী ব্যাংকে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উদযাপন

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ১০১ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন করা হয়েছে। এবারের জাতীয় শিশু দিবসের প্রতিপাদ্য ছিল- ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, শিশুর হৃদয় হোক রঙিন।’ অগ্রণী ব্যাংকও ওয়েবিনারে দিনব্যাপী বিশেষ অনুষ্ঠান মালার আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ চেয়ারম্যান ড. জায়েদ বখ্‌ত‌। ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও মোহম্মদ শামস্-উল ইসলামের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন, পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক কাশেম হুমায়ূন , কেএমএন মঞ্জুরুল হক লাবলু, তানজিনা ইসমাইল, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালকত্রয় মো. আনিসুর রহমান, মো. রফিকুল ইসলাম, মো. ওয়ালি উল্লাহ, মহাব্যবস্থাপকগণ, সার্কেল প্রধান, অঞ্চল প্রধান, কর্পোরেট শাখা প্রধান, শাখা ব্যবস্থাপক, অফিসার সমিতি, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড এবং সিবিএ এর নেতৃবৃন্দ সহ কর্মকতা-কর্মচারীগণ। সভার বিশেষ আকর্ষণ ছিল তারাপদ বিশ্বাস যিনি রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমানে সোহওয়ার্দী উদ্যান) ৭ ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ স্টেজের নীচে বসে রেকর্ড করেছিলেন।

ড. জায়েদ বখ্‌ত তার বক্তব্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর অর্থনৈতিক দূরদৃষ্টির কথা তুলে ধরে বলেন রাষ্ট্রীয় ব্যাংক হিসেবে আমাদের লাভ বা মুনাফার কথা চিন্তা না করে রাষ্ট্রের স্বার্থে সরকারকে এবং সমাজকে সাহায্য করতে হবে।

বঙ্গবন্ধু কর্নারের প্রতিষ্ঠাতা মোহম্মদ শামস্-উল ইসলাম জাতির পিতার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন তার সুযোগ্য কন্যার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ আজ উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেয়েছে। অগ্রণী ব্যাংকও এগিয়েছে অনেক দূর যা জাতির পিতা হয়তো এমনটাই চেয়েছিলেন। সে কারণে তিনি হাবিব ব্যাংকের নাম রেখেছিলেন অগ্রণী ব্যাংক, যেন সবার অগ্রে তার স্থান হয়। দিনটি উপলক্ষে অগ্রণী ব্যাংক ভবনে বর্ণিল আলোকসজ্জা সহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

কপিরাইট © অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড কর্তৃক সংরক্ষিত | Newsphere by AF themes.